মেমোরি কার্ডের সমস্যা এবং সমাধানের উপায়

মেমরি কার্ড বর্তমান কার্ড সময়ের প্রযুক্তি পণ্য গুলোর মধ্যে অন্যতম এবং এর নানাবিধ ব্যবহারিক সুবিধা থাকায় তা সহজেই ব্যবহার করা যায়। মেমোরি কার্ডের আরো একটি উল্লেখ জনক সুবিধা হল এটি আকারে ছোট হওয়ায় তা সহজেই বহণ করা যায় এবং ব্যবহার করা যায়। এছাড়া মেমোরি কার্ডে প্রায় সব ধরনের ডাটা স্টোর করে রাখা যায়। অনেক সময় আমাদের মেমোরি কার্ডে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টস,ফাইলস স্টোর করে রাখতে হয়। কিন্তু কেমন হবে যদি কোন কারণে মেমোরি কার্ডটিই ড্যামেজ বা নষ্ট হয়ে যায়। অনেক সময় আমাদের মেমোরির বাহ্যিক দিক পরিপাটি থাকলেও তা বিভিন্ন ডিভাইস যেমন মোবাইল,ট্যাব,কম্পিউটারে ঢুকালে তা আন এক্সিসেবল দেখায়। এসব সময় সমাধানের জন্য এবং ডাটা যাতে পুনরায় এস্কিসেবল হয় তার জন্য আপনারা নিচের কতিপয় পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করতে পারেন। আশা করি কাজে আসবে।

আমি আমার মেমরিতে এক্সেস/প্রবেশ করতে পারছিনাঃ

এটা খুবই সাধারণ এবং সর্বজন স্বীকৃত ইস্যু যে আমি আমার মেমোরিতে প্রবেশ করতে পারছিনা। এটা সম্ভবত আপনার ইউএসবি বা মেমোরি পোর্টে সমস্যার কারণে হয়ে থাকতে পারে। আপনি মেমোরিটি ভালভাবে বসিয়ে নিন অথবা মেমোরির অন্য ইউএসবি স্লটে লাগিয়ে চেষ্টা করতে পারেন। এরপরেও যদি কাজ না করে তাহলে ভিন্ন কম্পিউটার বা ডিভাইসে লাগিয়ে দেখতে পারেন।

আমার মেমরির নাম দেখাচ্ছে কিন্তু মেমোরির কন্টেন্ট বা ডাটা গুলো শো করছে না

যদি আপনার মেমোরিটি এরুপ আচরণ করে থাকে তাহলে আপনি নিচের পদ্ধতিটি অবলম্বন করে দেখতে পারেনঃ
১। আপনার কম্পিউটারের সার্চবার খুলুন এবং টাইপ করুন cmd
২।কমান্ড প্রম্পট(Command Prompt) অথবা  cmd.exe তে ক্লিক করুন
৪।টাইপ করুন “chkdsk /X /f sd card letter:” অথবা “chkdsk sd card letter: /f “,
উদাহরণস্বরুপ,  ”chkdsk /X /f G:” অথবা “chkdsk H: /f”.
উইন্ডোজ আপনার মেমোরি কার্ডের সমস্যা খুজে বের করবে এবং সমাধান করবে। এতে কিছুক্ষন সময় লাগবে। যদি আপনি কমান্ড উইন্ডোতে এমন একটি মেসেজ দেখতে পান যাতে লেখা থাকবে “Windows has made corrections to the file system” তাহলে আপনার কাজ সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। অন্যথায় আপনাকে এই সমস্যা সমাধান করার জন্য আলাদা মেমোরি রিকোভার করার সফটওয়ার ব্যবহার করতে হবে।

 

মেমোরি কার্ড ফর্মেটিংঃ

যদি আপনার মেমোরি কার্ডটি এমন হয় তাতে কোন রকম গুরুত্বপূর্ণ ফাইল বা তথ্যাদি নেই তাহলে আপনি আপনার মেমরিটি ফর্মেট করে নিতে পারেন।
মেমোরি কার্ড ফর্মেট করার জন্যঃ

১।আপনার মেমোরি কার্ডে ড্রাইভ লেটারে যান।
২।ড্রাইভ লেটারটিতে ডান বাটনে ক্লিক করুন।
৩।এরপর “Format” এ ক্লিক করুন।
৪।”Start” সিলেক্ট করুন।
৫। যদি আপনি কোন রকম সমস্যা ফেস করেন, তাহলে “Quick Format” অপশন থেকে টিক উঠিয়ে দিয়ে পুনরায় চেষ্টা করুন।

ডাটা রিকোভারি সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমেঃ

ডাটা রিকোভার করার সর্বোত্তম পদ্ধতি হল ডাটা রিকোভারিং সফটওয়্যার ব্যবহার করা। এজন্য বিভিন্ন সফটওয়্যার রয়েছে। এদের মধ্যে যেগুলোকে সব থেকে ভাল হিসেবে বিবেচনা করা হয় তার একটি তালিকা নিচে প্রদান করা হলঃ
১। Recuva (দক্ষ ব্যক্তিগণ এই সফটওয়্যারটিকে সাজেশন করে থাকে কারণ এর পারফরমেন্স অনেকটাই প্রশংসনীয়)
২। Prosoft’s Data Rescue(এই সফটওয়্যার ২০১৬ সালে সর্বোত্তম ডাটা রিকোভারি সফটওয়্যার হিসেবে ভোট পায়)
৩।MiniTool Partition Recovery

তাছাড়াও নিচের পদ্ধতি অবলম্ব করে দেখতে পারেন
প্রথমে কার্ড রিডারে মেমোরি কার্ড ঢুকিয়ে নিয়ে কম্পিউটারে সংযোগ দিন। খেয়াল রাখুন, মেমোরি কার্ড ফাইল এক্সপ্লোরারে বা হার্ড ড্রাইভের অন্যান্য ডিস্কের মতো দেখালে এটিতে প্রবেশ করা যাবে না, কিন্তু ফাইল সিস্টেম ঠিক আছে। এবার য়াপনার উইন্ডোজ এর স্টার্ট মেন্যুতে গিয়ে cmd লিখুন। এতে আপনার স্টার্ট মেন্যুর উপর দিকে কমান্ড প্রম্পট(cmd) দেখা যাবে। এখন এর ওপর ডান বোতাম চেপে Run as administrator নির্বাচন করে সেটি খুলুন। কমান্ড
প্রম্পট চালু হলে এখানে chkdskmr লিখে enter ক্লিক করুন। এখানে m হচ্ছে মেমোরি কার্ডের ড্রাইভ ।
কম্পিউটারে কার্ডের ড্রাইভ লেটার যে টি দেখাবে সেটি এখানে লিখে চেক ডিস্কের কাজটি সম্পন্ন হতে দিন।
এখানে convertlostchainsto files বার্তা এলে y চাপুন। এ ক্ষেত্রে ফাইল কাঠামো ঠিক থাকলে কার্ডের তথ্য আবার ব্যবহার করা যাবে। মেমোরি কার্ড যদি invalid filesystem দেখায় তাহলে সেটির ড্রাইভের ডান ক্লিক করেFormat-এ ক্লিক করুন। File systemথেকে FAT নির্বাচন করে Quick format-এর টিক চিহ্ন তুলে দিয়ে Format-এ ক্লিক করুন। ফরম্যাট সম্পন্ন হলে মেমোরি কার্ডের তথ্য হারালেও কার্ড নষ্ট হবে না

এই পদ্ধতিগুলো আপনাকে আশা করি কিছুটা হলেও অবশ্যই ডাটা রিকোভার/উদ্ধার করতে সহায়তা করবে। ডাটা ফিরে পাওয়ার পরপরই তা নতুন একটি সফটওয়্যার বা কার্ডে কপি করে সেইভ করে নিন। এতে পরবর্তীতে ডাটা হারানোর ভয় থাকে না। এছাড়া আপনি আপনার ডাটার সর্বোত্তম নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য তা গুগল ড্রাইভ,ড্রপবক্স কিংবা উইন্ডোজ ক্লাউডে সেইভ করে রাখতে পারেন।

সূত্রঃ টেকওঁরম

Advertisements

আপনার মতামত জানান

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s